17 জুলাই 2021: বিশেষ বিশেষ খবর – রাজ্যে শুরু উপনির্বাচনের প্রস্তুতি

  • Published by: Saroj Darbar
  • Posted on: July 17, 2021 8:46 pm
  • Updated: August 12, 2021 2:10 pm
News Bulletin

অক্টোবর থেকেই শুরু করতে হবে নয়া শিক্ষাবর্ষ। কসবার ভুয়ো টিকা কাণ্ডে নয়া মোড়। শক্তিবৃদ্ধি ভারতীয় নৌ সেনার। শুনে নিন আজকের বিশেষ বিশেষ খবর। 

হেডলাইন:

 

আরও পড়ুন: 16 জুলাই 2021: বিশেষ বিশেষ খবর – মাধ্যমিকের ফলপ্রকাশ ২০ জুলাই, রাজ্যে জয়েন্ট এন্ট্রান্স শনিবার

আরও শুনুন: 15 জুলাই 2021: বিশেষ বিশেষ খবর – মিলছে না ভ্যাকসিন, প্রধানমন্ত্রীকে ফের চিঠি মুখ্যমন্ত্রীর

বিস্তারিত খবর:

1.রাজ্যে উপনির্বাচনের ঢাকে কাঠি। প্রস্তুতি শুরু করে দিল নির্বাচন কমিশন । রাজ্যের মোট সাতটি কেন্দ্রে বাকি উপনির্বাচন। কেন্দ্রগুলি হল, ভবানীপুর, খড়দহ, গোসাবা, শান্তিপুর, জঙ্গিপুর, সামশেরগঞ্জ এবং দিনহাটা। সেখানে ইভিএম-ভিভিপ্যাটের ‘ফার্স্ট লেভেল চেকিং’ অর্থাৎ প্রথম পর্যায়ে পরীক্ষার নির্দেশ দিল কমিশন। শুক্রবার সংশ্লিষ্ট জেলা কর্তাদের এই নির্দেশ দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক আরিজ আফতাব।

বৃহস্পতিবারই শীঘ্র উপ নির্বাচনের দাবিতে নির্বাচন কমিশনের কাছে দরবার করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস । তারপরের দিনই প্রথম পর্যায়ে ইভিএম পরীক্ষার নির্দেশ শাসক দলের নৈতিক জয় বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। সাধারণত EVM-ভিভিপ্যাটের ‘ফার্স্ট লেভেল চেকিং’-এর মাধ্যমেই কোনও জায়গায় শুরু হয়ে যায় নির্বাচন প্রক্রিয়া। ভোট প্রস্তুতির সর্বপ্রথম ধাপ এটি। ফলে ইভিএম ভিভিপ্যাটের ফার্স্ট লেভেল চেকিং শুরু করতে বলে কার্যত উপনির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করে দিল কমিশন। যেহেতু মুর্শিদাবাদে ইভিএম চূড়ান্ত পরীক্ষা করা রয়েছে, তাই মুর্শিদাবাদ বাদে বাকি পাঁচ জেলাকে ইভিএম-ভিভিপ্যাট প্রথম পর্যায়ের প্রস্তুতি সেরে ফেলতে বলা হয়েছে আগামী ৩ থেকে ৬ আগস্টের মধ্যে। কোভিড বিধি মেনে এই কাজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

2. হাজার প্রতিবাদ-বিক্ষোভ সত্ত্বেও অব্যাহত জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি। শনিবার কলকাতায় লিটার প্রতি পেট্রলের দাম ছাড়াল ১০২ টাকা। বাড়ল ডিজেলের দামও। চলতি মাসে এই নিয়ে পেট্রলের দাম বাড়ল দশ বার। লাগামছাড়া জ্বালানির মূল্যে মাথায় হাত মধ্যবিত্তের।
কলকাতায় শনিবার এক লিটার পেট্রলের দাম ৩৪ পয়সা বেড়ে হয়েছে, ১০২ টাকা ৮ পয়সা। আরও মহার্ঘ্য হয়েছে ডিজেলও। ২১ পয়সা বেড়ে ডিজেলের দাম হয়েছে ৯৩ টাকা ২ পয়সা। প্রায় দু’বছর অতিমারীর প্রভাবে কর্মহারা বহু মানুষ। উত্তরোত্তর জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধিতে দিশেহারা আমজনতা। তেলের দাম বৃদ্ধির প্রভাব পড়ছে খুচরো বাজারেও। বিভিন্ন পণ্য কিনতে গিয়ে পকেটে টান পড়ছে সাধারণ গৃহস্থের। ইতিমধ্যেই জ্বালানির মূল্য কমানোর দাবিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রতিবাদ আন্দোলনে নেমেছে কংগ্রেস, তৃণমূল সহ একাধিক দল। কিন্তু কিছুতেই অবস্থার বদল হচ্ছে না।

3. কোভিড রিপোর্ট নেগেটিভ। কিন্তু জ্বর কমছে না। রাজ্যের একাধিক শিশুর ক্ষেত্রে এমনটা হচ্ছে। করোনা থাকলেও রিপোর্ট আসছে নেগেটিভ। এমনটাই জানিয়েছেন কোভিড মনিটরিং টিমের সদস্যরা। চিকিৎসকরা বলছেন, বাচ্চাদের ক্ষেত্রে RT-PCR টেস্ট করার প্রক্রিয়াই এর কারণ। স্থিরভাবে বাচ্চাকে বসিয়ে RT-PCR টেস্টে সমস্যা হচ্ছে, তার ফলে অনেক সময়েই পর্যাপ্ত পরিমাণে লালারস নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। ফলে আসছে না সঠিক রিপোর্ট।
ডা. বিসি রায় পোস্ট গ্র‍্যাজুয়েট ইন্সটিটিউট অফ পেডিয়াট্রিকস’-এর শিশু শল্য বিভাগের চিকিৎসক তথা রাজ্য কোভিড মনিটরিং টিমের সদস্য ডা. সুজয় পালের বক্তব্য, করোনার সমস্ত লক্ষণ থাকা সত্বেও যদি তার কোভিড রিপোর্ট নেগেটিভ আসে, সেটি ফলস নেগেটিভ। এমতাবস্থায় ৪৮ ঘন্টা পর আবার টেস্ট করানোর পরামর্শ দিচ্ছেন তিনি।
ডা. পাল আরও জানাচ্ছেন, কোনও বাচ্চার যদি তিন-চারদিনের বেশি জ্বর থাকে, কিংবা ডায়েরিয়ার উপসর্গ থাকে বাড়িতে বসে থাকবেন না। উপসর্গ দেখা দেওয়ার ৫-৭ দিনের মধ্যে টেস্ট করান। অনেক ক্ষেত্রেই বাড়ির বড়দের থেকেই সংক্রমণ ছড়াচ্ছে খুদেদের মধ্যে। মা আর শিশু একই সঙ্গে করোনা আক্রান্ত হওয়ার উদাহরণ ভূরি ভূরি। ২ মাসের নিচে বাচ্চা মিনিটে ৬০ বারের বেশি শ্বাসপ্রশ্বাস নিলেই সাবধান হতে হবে। ৫ বছরের উপরের শিশুদের ক্ষেত্রে মিনিটে ৩০ বারের উপর শ্বাস নেওয়া মারাত্মক। এরকম হলে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকদের পরামর্শ নিন, জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

4. আগামী ১ অক্টোবরের মধ্যে চালু করতে হবে নতুন শিক্ষাবর্ষ। শনিবার নয়া নির্দেশিকা জারি করল বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন। সমস্ত রাজ্যের কলেজের অধ্যক্ষ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের কাছে পাঠানো হয়েছে এই নয়া নির্দেশিকা। নির্দেশিকা অনুযায়ী, আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে করতে হবে সমস্ত বোর্ডের পরীক্ষার ফলপ্রকাশ। ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরে পড়ুয়াদের ভরতি প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে।

নির্দেশিকায় আরও জানানো হয়েছে যে, আগামী ৩১ আগস্টের মধ্যে শেষ করতে হবে, চূড়ান্ত পর্বের সমস্ত পরীক্ষা। অফলাইন বা অনলাইন – সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যে পদ্ধতি চাইবে, সেই পদ্ধতিতেই হবে পরীক্ষা। তবে অফলাইনে পরীক্ষার ক্ষেত্রে করোনা পরিস্থিতির জন্য শারীরিক দূরত্ববিধি-সহ অবলম্বন করতে হবে একাধিক প্রয়োজনীয় সতর্কতা। শিক্ষাবর্ষ শুরুর ক্ষেত্রেও অফলাইন অথবা অনলাইন দুটি পদ্ধতিই অবলম্বন করা যেতে পারে। তবে প্রতি ক্ষেত্রেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রাখতে হবে। করোনার জেরে আর্থিক ক্ষেত্রে অনেকেই বিপাকে পড়েছেন। সিদ্ধান্ত হয়েছে, যদি কোনও পড়ুয়া ভরতির পর পড়াশোনার সিদ্ধান্ত বাতিল করে, সেক্ষেত্রে তাকে ফেরত দিতে হবে পুরো টাকা।

5. নতুন মোড় নিল কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ড। যে টিকাগুলি দেওয়া হয়েছিল সেগুলি যে ভুয়ো তার প্রমাণ কী? কোন ল্যাবরেটরি রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে একে ‘ভুয়ো’ বলা হচ্ছে? এমনই হাজার প্রশ্ন তুলে বিষয়টি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করলেন আইনজীবী অজিত মিশ্র। মামলাটি গৃহীত হয়েছে। আগামী সপ্তাহে শুনানির সম্ভাবনা।

কসবার টিকাশিবিরের করোনা টিকার নামে ভুয়ো ভ্যাকসিন দেওয়ার অভিযোগে দেবাঞ্জন দেব সহ বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করেছে কলকাতা পুলিশ। ঘটনার তদন্তে তৈরি হয়েছে SIT। মোট ৪টি জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছিল কলকাতা হাই কোর্টে। হাইকোর্টে সিবিআই তদন্তের পক্ষেও সওয়াল করা হয়েছিল। কলকাতা হাইকোর্ট জানায়, সিটের তদন্ত যথাযথ পথে এগোচ্ছে, এখনই সিবিআই তদন্তের দরকার নেই। সেই নির্দেশকেও চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে সর্বোচ্চ আদালতে দায়ের হওয়া মামলায়।

শুক্রবার আইনজীবী অজিত মিশ্র কসবার ক্যাম্পের টিকাগুলি ‘ভুয়ো’ সেই প্রমাণ চেয়ে প্রশ্ন তুলে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন। এই আইনজীবীর যুক্তি, দেশে মোট ৫৫টি অনুমোদনপ্রাপ্ত ল্যাবরেটরি রয়েছে, যারা কোনও টিকা ‘ভুয়ো’ কিনা, তা পরীক্ষা করে, রিপোর্ট দেয়। কিন্তু এই ৫৫টি ল্যাবের কোনও একটির রিপোর্টে কি বলা হয়েছে যে সেটি ‘ভুয়ো’? ওই আইনজীবীর অভিযোগ এই তদন্তে গোড়া থেকেই গাফিলতি রয়েছে। তাঁর মামলাটি গ্রহণ করেছে সুপ্রিম কোর্ট। এর জেরে বিষয়টির গুরুত্ব আরও বাড়ল বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের।

6. মধ্যপ্রদেশে ভয়াবহ দুর্ঘটনা। শিশুকে বাঁচাতে গিয়ে কুয়োয় পড়ে গেলেন চল্লিশ জন। ওই ঘটনায় মৃত্যু হল ১১ জনের। বাকিদের জীবিত উদ্ধার করা গিয়েছে।

ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে। গঞ্জবাসোদা এলাকার লালপাথার গ্রামে একটি ৪০ ফুট গভীর কুয়োতে পড়ে যায় দশ বছরের এক বালক। তাকে উদ্ধারের চেষ্টায় কুয়োর পাড়ে ভিড় করেন বহু মানুষ। প্রচণ্ড চাপে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে কুয়োর দেওয়াল। ভিতরে পড়ে যান ৪০ জন।

উদ্ধারকাজ শেষ হয়েছে। সবার শেষে উদ্ধার হয় বালকটির মৃতদেহ। এই ঘটনায় শোকপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মৃতদের পরিবার পিছু ২ লক্ষ টাকার আর্থিক সাহায্য ঘোষণা করেছেন তিনি। ঘটনায় দ্রুত তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন সে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান। মৃতদের পরিবার প্রতি ৫ লক্ষ ও আহতদের ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন তিনি।

7. আমেরিকা থেকে ভারতে এল অত্যাধুনিক বহুমুখী ক্ষমতাসম্পন্ন দু’টি এমএইচ-৬০আর মাল্টি রোল হেলিকপ্টার। নিঃসন্দেহে এই হেলিকপ্টারের অন্তর্ভুক্তিতে আরও শক্তিশালী হল ভারতীয় নৌসেনা । শুক্রবার সান দিয়েগোতে মার্কিন নৌসেনা ঘাঁটিতে ভারতের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে এই হেলিকপ্টার। এই রকম মোট ২৪টি হেলিকপ্টারের বরাত দিয়েছে ভারত। সব মিলিয়ে যার মূল্য ২৪০ কোটি মার্কিন ডলার।

এই অত্যাধুনিক হেলিকপ্টার ভারতের হস্তগত হওয়াকে নৌসেনার এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা বলে মনে করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে ভারত-মার্কিন সামরিক সম্পর্ক ও অংশীদারির ক্ষেত্রেও নতুন যুগের সূচনা বলে একে চিহ্নিত করছে ওয়াকিবহাল মহল। আগামিদিনে মার্কিন নৌসেনা ভারতকে সব রকম সহায়তা করবে শক্তিবৃদ্ধির ক্ষেত্রে।

8. মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে বেশ আঁটসাট ছিল বন্দোবস্ত। যদিও হল না শেষরক্ষা। টোকিও অলিম্পিক শুরুর আগেই প্রথম করোনা পজিটিভের হদিশ মিলল গেম ভিলেজে। আয়োজকদের তরফেই এ খবর নিশ্চিত করা হয়েছে।

প্রতিবারের মতো এবারও গেম ভিলেজেই থাকবেন হাজারেরও বেশি প্রতিযোগী। অতিমারীর কারণে অন্যান্যবারের থেকে এবার কড়াকড়িও বেশি। প্রতিযোগীদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে মাস্ক পরা, দূরত্ববিধি মেনে চলার মতো নানা বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও মারণ ভাইরাস থাবা বসাল গেম ভিলেজে। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনায় বেড়েছে উদ্বেগ। তবে আয়োজকরা আত্মবিশ্বাসের সঙ্গেই জানাচ্ছেন, চিন্তার কোনও কারণ নেই। সংক্রমণ রুখতে সমস্ত ব্যবস্থাই গ্রহণ করা হয়েছে। মুখ্য আয়োজক সেইকো হাসিমতো বলেন, “কোভিড যাতে না ছড়ায়, সে ব্যাপারে আমরা সদা সতর্ক। আর একান্তই সংক্রমণ ঢুকে পড়লে আমাদের বিকল্প পরিকল্পনাও ভাবা আছে।” আপাতত করোনা কাঁটা সরিয়ে অলিম্পিকের স্বাদ গ্রহণ করতে মুখিয়ে গোটা বিশ্বে ক্রীড়াপ্রেমী।

আরও শুনুন
Maida Bilal led a group of women from her village in a 503 day blockade

Maida Bilal: নদী আগলে বসে ৫০০ দিন, এই মহিলার লড়াইকে কুর্নিশ বিশ্বের

নদী বাঁচাতে কী করেছিলেন ইনি? শুনে নিন প্লে-বাটন ক্লিক করে।

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

Ganga or Padma, who is ahead in the race of Hilsa?

গঙ্গা না পদ্মার ইলিশ! স্বাদের দৌড়ে এগিয়ে কোনটা? কী বলছেন রসনা বিশেষজ্ঞরা?

শুনে নিন প্লে-বাটন ক্লিক করে।

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

Maharaja of Krishnanagar had two pet tigers in Nadia House

রাজার শখ… আর কিছু নয় একেবারে জোড়া বাঘ পুষেছিলেন কৃষ্ণনগরের মহারাজা

শুনে নিন প্লে-বাটন ক্লিক করে।

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

মিস করবেন না!
snake venom prevents corona virus in monkey cells

বিষেই কি হবে বিষক্ষয়? করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এবার হাতিয়ার সাপের বিষ

শুনে নিন প্লে-বাটন ক্লিক করে।

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

Story on Bengali food culture: Inclusion of Daal in Bengali Menu

Daal: বাঙালির পাতে কবে থেকে উঠল ডাল?

ডাল কি বাংলার নিজস্ব খাবার? কয়েকশো বছর আগে বাঙালি কি ডাল খেত?

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

Horoscope Today: Astrological Prediction for August 14

Horoscope: কর্মক্ষেত্রে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আনুকূল্য লাভ কাদের, জেনে নিন রাশিফল

রাশিফল শুনে নিন প্লে বাটন ক্লিক করে।

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

What is the condition of College Street 'Boipara' in Lockdown

College Street: লকডাউনে কেমন আছে বাঙালির আবেগের বইপাড়া?

বই বিক্রিতে যদি ঘাটতি হয়, তাহলে বইপাড়া কীভাবে চলবে?

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো