‘যে পরিমাণ ড্রাগ নিয়েছি, তাতে গোটা গুয়াতেমালা অসাড় হয়ে যায়!’, পরপর সাতটা দুর্ঘটনা ঘটিয়ে স্বীকারোক্তি ছিল ধনকুবের জর্ডান বেলফোর্টের

Published by: Susovan Pramanik |    Posted: March 27, 2021 4:27 pm|    Updated: March 27, 2021 4:43 pm

Published by: Susovan Pramanik Posted: March 27, 2021 4:27 pm Updated: March 27, 2021 4:43 pm

মাত্র ২৬ বছর বয়সে মিলিয়নেয়রদের দলে নাম লেখালেন জর্ডান বেলফোর্ট। এমনকী, ‘ফোর্বস’-এর কভার পেজেও এলেন! বিলাসবহুল জীবন যাপনে এল উচ্ছৃঙ্খলতা। প্রথম পক্ষের স্ত্রী ছেড়ে গেলে ঘরে তুললেন দ্বিতীয় পক্ষ। এরপর থেকেই জর্ডানের জীবনের দ্বিতীয় অধ্যায় শুরু হল।

ড্রাগসের কবলে পড়লেন। বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান ড্রাগ কুয়ালুডস-এর করাল গ্রাসে সমর্পণ করলেন নিজেকে। তাঁর ব্যভিচারী জীবনে এমন কিছু ঘটনা আছে যা শুনলে বিশ্বাস করতে কষ্ট হয়। একবার বিশাল ডিল ফাইনাল হলে সঙ্গীদের তুলেছিলেন একটি বিলাসবহুল হোটেলে। সেখানে তাঁর বিল হয় প্রায় সাত লক্ষ ডলার! একবার দশ হাজার ডলারের নোটের খাট সমান ঢিপি বানিয়ে তার উপর স্ত্রীয়ের সঙ্গে সম্ভোগে মেতেছিলেন। তাঁর বয়ান অনুযায়ী তাতে ছিল মোট ৩ মিলিয়ন ডলার! নিজের বিলাসবহুল প্রাসাদে ব্যক্তিগত হেলিকপ্টারটি একবার নামিয়েছিলেন মাত্র একটা চোখ খোলা রেখে। কারণ ড্রাগের নেশায় বুঁদ ছিলেন তখন। চোখে দুটো করে দেখছিলেন সবকিছু! সঙ্গে সঙ্গে চলত ছিল উদ্দাম যৌনতা! অফিসে পার্টি হলেই আসর বসত দামি মদ, ড্রাগস আর কলগার্লদের। নিজের কোম্পানির ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে বেশ্যাখানার বিল মিটিয়েছেন এমন নজিরও প্রচুর! স্ত্রীকে বিবাহবার্ষিকী তে দিয়েছিলেন একটি বিলাসবহুল ইয়ট– ভূমধ্যসাগরীয় ঝঞ্ঝায় যা আবার নিজে হাতে মাঝসমুদ্রে ডুবিয়ে দেন! ম্যানহাটানে নিজের অফিসে বেঁটে মানুষদের নিয়ে ‘বুল্‌স আই’ খেলতেন! এক জুনিয়র মহিলা কলিগ নিজের ব্রেস্ট জবের জন্য পেয়েছিলেন পাঁচ হাজার ডলার; প্রতিশ্রুতি মতো নিজের মাথা কামিয়ে নিয়েছিলেন সেই মহিলা!

কী করেননি জর্ডান!

নিজের সেক্রেটারিকে ভোর চারটেয় উঠিয়ে লন্ডনে ড্রাগসের ইমার্জেন্সি সাপ্লাই করিয়েছিলেন। স্ত্রীয়ের মাসিকে কাজে লাগিয়ে প্রচুর টাকা চালান করেছিলেন সুইস ব্যাংকে। একবার পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে সাত-সাতটি দুর্ঘটনা একদিনে ঘটানোর জন্য। পরের দিন সকালে নেশায় অচৈতন্য জর্ডানের সাতটি ঘটনার একটিও মনে পড়েনি! ফোর্বস-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছিলেন, “the drugs I’ve consumed are enough to sedate whole Guatemala!”

 
বাকিটা শুনে নিন…

লেখা: অনীশ ভট্টাচার্য
পাঠ: কোরক সামন্ত
আবহ: শঙ্খ বিশ্বাস

পোল