রাজার শখ… আর কিছু নয় একেবারে জোড়া বাঘ পুষেছিলেন কৃষ্ণনগরের মহারাজা

  • Published by: Saroj Darbar
  • Posted on: September 11, 2021 4:03 pm
  • Updated: September 12, 2021 12:27 pm

খৈরি বাঘের গল্প হয়তো অনেকেই শুনেছেন। ওড়িশার সিমলিপাল জাতীয় উদ্যানের প্রতিষ্ঠাতা সরোজ রাজ চৌধুরীর পোষা বাঘ ছিল খৈরি। কিন্তু জানেন কি, সে ঘটনার প্রায় বছর পনেরো আগে কলকাতা শহরের বুকেও ঘটেছিল এমন কাণ্ড? তাও আবার এক বাঙালির হাতেই?

কেবল সুন্দরবন কেন, খোদ কলকাতা শহরের বুকেও বাঘের আনাগোনা চলত এককালে। উঁহু, একটু ভুল হল, সে কলকাতা তখনও শহরের পোশাক গায়ে চাপায়নি। সাগরপারের দেশ থেকে ইংরেজরা এদেশে এসে জাঁকিয়ে বসছে সবে। আজকে যেসব জায়গা সাহেবপাড়া বলেই পরিচিত, যেমন ধরুন চৌরঙ্গী কিংবা পার্ক স্ট্রিট, সেসব এলাকায় বাঘের দেখা মেলা মোটেও অসম্ভব ছিল না সেকালে। কিন্তু সে তো বেশ আগের কথা। তারপর গ্রাম থেকে শহর হল, আর শহরকে জায়গা দিতে গিয়ে ক্রমশ পিছিয়ে গেল বনজঙ্গল। সেখানে ১৯৫০-এর দশকে ঝকঝকে দক্ষিণ কলকাতায় বাঘ? তাও কি সম্ভব?

আরও শুনুন: প্রথম বাঙালি কোটিপতি, ব্যবসা করে সেই আমলে তাক লাগিয়েছিলেন রামদুলাল দে

আজ্ঞে হ্যাঁ, সম্ভব হয়েছিল বইকি। তাও একটি নয়, দু-দুটি বাঘ বাস করত দক্ষিণ কলকাতার এক বাড়িতে। তাদের নাম স্যামসন আর ডিলাইলা। সে বাড়ির আদি নাম ছিল ‘নদীয়া হাউজ’, কিন্তু বাঘ বাবাজিদের হাঁকডাকের চোটে এলাকার লোক তাকে ডাকতে শুরু করল বাঘ-বাড়ি নামে। সেই গল্পই বলি।

আরও শুনুন: Khichri: আপনি আমি তো কোন ছাড়!  খিচুড়ির প্রেমে মজেছিলেন রাজা-বাদশারাও

‘নদীয়া হাউজ’ হল কৃষ্ণনগরের রাজাদের কলকাতার বাসভবন। এই বাড়িতে এককালে থাকতেন মহারাজা সৌরীশচন্দ্র। তাঁর নেশা ছিল দুটো। ইতিহাস আর শিকার। প্রেসিডেন্সি কলেজ, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ভাল ছাত্রটি বন্দুক হাতে নিলেই হয়ে যেতেন অন্য মানুষ। ভারত জুড়ে ছিল তাঁর শিকারের খ্যাতি। আর সেই সূত্রেই একবার মধ্যপ্রদেশ সরকারের থেকে বাঘ শিকারের ডাক পান তিনি। সেটা ১৯৫৮ সাল। মধ্যপ্রদেশে উপদ্রব শুরু করেছে একটি নরখাদক রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। পনেরো দিন ধরে সেই বাঘের পিছনে ঘুরে অবশেষে তাকে কবজা করা গেল। কিন্তু নিশ্চিন্ত হওয়া তো দূর, দুঃখে বিহ্বল হয়ে পড়লেন খোদ শিকারি। কেন? আসলে সন্তানসম্ভবা পশু, বা যার ছোট সন্তান রয়েছে তেমন মা-পশুকে কোনও বড় শিকারিই সাধারণত মারেন না। সৌরীশচন্দ্রও এই নিয়ম মেনে চলতেন। কিন্তু এবার শিকার করার পর তিনি দেখলেন, তিনি মেরে ফেলেছেন একটি বাঘিনিকেই। খোঁজ পাওয়া গেল দুটি সন্তানও রয়েছে তার। হয়তো অনুশোচনা থেকেই সেই দুটি বাঘের বাচ্চার দায়িত্ব নিতে চাইলেন তিনি নিজে। সুতরাং রাজা সৌরীশচন্দ্রের সঙ্গে বাঘের ছানারাও পাড়ি দিল কলকাতায়। নামকরণ হল তাদের। যত্নে আদরে দিব্যি বেড়ে উঠল তারা, হ্যাঁ, শহর কলকাতাতেই।

শেষ পর্যন্ত অবশ্য আইনি জটিলতায় পালক পিতার কাছেও থাকা হয়নি তাদের। কিন্তু তাদের স্মৃতি রয়ে গেছে এই পুরনো বাড়ির আনাচেকানাচে, আজও কলকাতা যাকে ‘বাঘ-বাড়ি’ বলেই মনে রেখেছে।

আরও শুনুন
Special Olympics : Sonu Sood becomes brand ambassador for India

Special Olympics: এবার ভারতের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর Sonu Sood

সোনু সুদের মুকুটে নতুন পালক, স্পেশাল অলিম্পিক্সে ভারতের ব্র্য়ান্ড অ্যাম্বাস্যাডর হলেন তিনি।

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

16 September 2021: Listen to this podcast for peace and tranquillity

Spiritual: প্রতিমা পুজোকে অনেকেই বলে পুতুল পুজো, সে কথা কি ঠিক?

শুনে নিন প্লে-বাটন ক্লিক করে।

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

How women's are using social media for raise their voice

বুক ফাটলে এখন মুখও ফোটে, মেয়েদের প্রতিবাদের মঞ্চ Social Media

ঘরে বাইরে অনেক মেয়েকেই নানা সময়ে নানা ধরনের হেনস্তার মুখোমুখি হতে হয়। কিন্তু নিজেদের ক্ষোভ-রাগ-দুঃখের কথা কি সবাই বলতে পারেন?

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

মিস করবেন না!
Horoscope : Check your astrological prediction for the day 27 August 2021

Horoscope: আগুন থেকে বিপদ হতে পারে কাদের? জেনে নিন রাশিফল

শুনে নিন প্লে-বাটন ক্লিক করে।

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

Story on Bengali food culture: Inclusion of Daal in Bengali Menu

Daal: বাঙালির পাতে কবে থেকে উঠল ডাল?

ডাল কি বাংলার নিজস্ব খাবার? কয়েকশো বছর আগে বাঙালি কি ডাল খেত?

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

Operation Devi Shakti: how Indian army rescues from Afganistan

Operation Devi Shakti: মাতৃশক্তির বলে বলীয়ান হয়েই কাবুল থেকে বিপর্যস্তদের উদ্ধার ভারতীয় সেনার

শুনে নিন প্লে-বাটন ক্লিক করে।

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো

Film review: Farhan Akhtar's 'Toofaan' can't impress our Cinepisi

ফারহানের ‘Toofaan’ দেখে Cineপিসি কী বলল জানেন?

বক্সিং তো হল। কিন্তু সিনেমাটা! Cineপিসি যা বলল, প্লে-বাটন ক্লিক করে শুনে নিন।  

Team সংবাদ প্রতিদিন শোনো