হাসপাতালে বিছানা নেই; গাছের মগডালে নিজের ‘আইসোলেশন বেড’ বানিয়ে কোভিড জয় এই অষ্টাদশীর!

Published by: Sankha Biswas |    Posted: May 20, 2021 8:15 pm|    Updated: May 20, 2021 8:15 pm

Published by: Sankha Biswas Posted: May 20, 2021 8:15 pm Updated: May 20, 2021 8:15 pm

রোগভোগের বালাই নিয়েও প্রশংসা কুড়লেন তেলেঙ্গানার যুবক রমাবৎ শিব। স্থানীয় হাসপাতালে বেডের অভাব। প্রত্যাখ্যাত হন কোভিড আক্রান্ত ওই যুবক। এদিকে সংক্রমণের ভয়ে বাড়ির লোকের সঙ্গে থাকা যাবে না। এখন উপায়? অগত্যা গাছের মাচাতেই ওই যুবক তৈরি করে ফেললেন নিজস্ব আইসোলেশন বেড! ১১ দিন প্রকৃতির কোলে পাখপাখালিদের সঙ্গে ‘নিভৃতাবাস’ সেরে কোভিড জয় করে ফিরলেন ‘গাছবাড়ি’র মালিক।

চলতি মাসে তাঁর করোনা ধরা পড়ে। তবে মা-বাবা-ভাই-বোনকে তো আর সংক্রমিত হতে দেওয়া যায় না। এদিকে গ্রামের মোড়লের কাছে তাঁর অসুস্থতার খবর পৌঁছলেও কেউ দেখা করতে আসেনি। মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন গ্রামবাসীরাও, প্রত্যন্ত ভারতে এটাই দস্তুর। কোথায় যেতেন শিব? কীভাবে থাকতেন? উপায় হাতড়াচ্ছিলেন। কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পর প্রথম রাত কাটে বাড়ির উঠোনেই। আর তখনই বিদুৎবেগে মাথায় খেলে যায় একটা আইডিয়া!

দুর্লঙ্ঘ্য পরিস্থিতিতে নিজেই নিজের শিব ঠাকুর হয়ে উঠলেন ১৮ বছরের শিব। বেশ কয়েক টুকরো শক্ত কাঠ, বাঁশ আর লোহার রড জোগাড় করলেন এদিক-সেদিক থেকে। জড়ো করলেন ছেঁড়া ন্যাকড়া, তাপ্পি, বাতিল দড়ি। এরপর বাড়ির নিকটস্থ এক লম্বা গাছের মগডালে মণ্ডপের কায়দায় সেসব জুড়েটুড়ে তৈরি করে ফেললেন অস্থায়ী মাচা। আর সেটাই হয়ে উঠল তাঁর আইসোলেশন বেড! এক্কেরে নিজস্ব! ফর দ্য সেল্ফ, অফ দ্য সেল্ফ, বাই দ্য সেল্ফ! তাঁর এই কীর্তি রীতিমতো ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। নেটিজেনদের তো বটেই, বিভিন্ন শহরের নামী-দামি চিকিৎসকদেরও ভূয়সী প্রশংসা কুড়িয়েছে তাঁর অভিনব আত্মদ্যোগ।

এই আতঙ্কের বাজারে খোলা আকাশের তলায় দিব্য নিজের কোয়ারেন্টিন পিরিয়ড উতড়ে দেন শিব। সঙ্গত দিয়েছিল পাখিদের ডাক, কাঠবিড়ালীর কুচকুচ আর বুকভরা অক্সিজেন। খাবার দিয়ে যেতেন মা-বোনেরা। খাবার রেখে আসার আগে ফোনে জানিয়ে দেওয়া হত শিবকে। নিজের ‘আইসোলেশন বেড’ থেকে নেমে খাবার খেয়ে আসতেন তিনি। একই পদ্ধতিতে সারতেন স্নান এবং অন্যান্য কাজও।

এভাবেই আস্তে আস্তে কাটিয়ে দেন ১১ দিন।
তারপর?
শুনে নিন…

লেখা: সোহিনী সেন
পাঠ: সুযোগ বন্দ্যোপাধ্যায় ও শঙ্খ বিশ্বাস
আবহ: শঙ্খ বিশ্বাস

পোল