মৃত, তবু আজও সক্রিয় ফারাও তুতেনখামেন ও তাঁর অভিশাপ!

Published by: Susovan Pramanik |    Posted: March 5, 2021 12:08 pm|    Updated: March 5, 2021 4:27 pm

Published by: Susovan Pramanik Posted: March 5, 2021 12:08 pm Updated: March 5, 2021 4:27 pm

তুতেনখামেনের সমাধি উদ্‌ঘাটনের সঙ্গে সঙ্গেই শুরু হল ব্যাখ্যাতীত কিছু ঘটনা। প্রথম ঘটনাটি ঘটে তুত–এর সমাধি উদ্ধারকার্য চলাকালীন। কার্টারের এক সহকারী জেম্স‌ ব্রিস্টেড এই ঘটনার সাক্ষ্য দেন। জোরকদমে কাজ চলছে। কার্টার তাঁর বাড়িতে খবর পাঠানোর জন্য একজনকে পাঠান। সেই ব্যক্তি বাড়ি পৌঁছতেই শুনতে পান এক আলতো আর্তনাদ। অনেকটা মানুষের চিৎকারের মতোই। আতঙ্কিত হয়ে দৌড়ে যান প্রবেশ দরজার কাছে। গিয়ে যা দেখেন তাতে তাঁর রক্ত হিম হয়ে যায়। একটা আস্ত কেউটে পেঁচিয়ে ধরেছে কার্টারের সাধের ক্যানারি পাখিটিকে, খাঁচাসমেত। স্তম্ভিত হয়ে যান তিনি। এই দৃশ্য যে হুবহু মিশরীয় রাজতন্ত্রের প্রতীক!

মন বায়ুর চেয়ে বেগমান,আর গুজবের বেগ তার চেয়েও বেশি। ‘শাহি কেউটের আক্রমণ কার্টারের বাড়িতে’- ‘দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস’–এর এই প্রতিবেদন সারা পৃথিবীতে মমির অভিশাপ এর জল্পনা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্যে যথেষ্ট ছিল। কার্টার নিজেও চেয়েছিলেন এই মিশন থামিয়ে দিতে। কিন্তু জ্ঞানপিপাসু মানুষের মনে বিজ্ঞানের আলো কি আর এত সহজে নিভে যায়?নেভে না। অতএব, তাঁর অনুসন্ধিৎসা চলতে থাকে।

তবে অপমৃত্যুর সূচনা ঘটল লর্ড কর্নারভনের রহস্যমৃত্যু দিয়ে। আনন্দে আত্মহারা কর্নারভন মেয়েকে নিয়ে নৌকাবিহারে বেরলেন নীলনদের বুকে। সেখানেই একটা মশা কামড়ায় তাঁর গালে। নিছক স্বাভাবিক ঘটনা। কিন্তু পরের দিন দাড়ি কমানোর সময় সেই জায়গাতেই খুর লেগে যায়। ভয়ংকর রক্তপাতে ইনফেকশন হয়ে যায়। তার সঙ্গে ধরল নিউমোনিয়া। অনেক চেষ্টা করেও বাঁচানো গেল না তাঁকে। তাঁর মৃত্যুর ঠিক দু’সপ্তাহ আগে ‘নিউ ইয়র্ক ওয়র্ল্ড ম্যাগাজিন’–এ মারি করেলি লিখেছিলেন “বদ্ধ সমাধিতে অনুপ্রবেশকারীরা সাবধান থাকুক। তাদের প্রাপ্য ‘ভয়ঙ্কর শাস্তি’ থেকে তাঁরা বঞ্চিত হবেন না!” লর্ড কর্নারভনের মৃত্যু আরও উস্কে দিল অভিশাপের জল্পনা। এমনকী, দুঁদে নেতা বেনিতো মুসোলিনি তাঁর উপহার পাওয়া মমি ফিরিয়ে দিলেন ভয়ে!

এই বিতর্ক কিন্তু কখনওই ধামাচাপা পড়েনি। বলা ভাল, ধামাচাপা দেওয়া যায়নি। বিশেষ করে যখন বিশ্ববরেণ্য লেখক স্যর আর্থার কোনান ডয়েল এ বিষয়ে তাঁর মতামত দিলেন। রাজা তুতেনখামেনের সমাধির পুরোহিত রা রাজাকে রক্ষা করার জন্যে মন্ত্রপূত কিছু আধিদৈবিক প্রহরী সৃষ্টি করেছিলেন। লর্ড কর্নারভনের মৃত্যুর আসল কারণ হলেন তাঁরা। এই ব্যাখ্যা দেশ–বিদেশের মিডিয়ায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি করে। আর্থার উইগাল জানিয়েছিলেন, কীভাবে কর্নারভন অভিশাপের কথা হেসেখেলে উড়িয়ে তুতেনখামেনের সমাধিতে ঢুকেছিলেন।

তিনি কি আর জানতেন নিয়তি তার জন্য কি উপহার সাজিয়ে রেখেছে!

শুনুন…

লেখা: অনীশ ভট্টাচার্য
পাঠ: শঙ্খ বিশ্বাস
আবহ: শঙ্খ বিশ্বাস

পোল