জীবন সায়াহ্নে দূরদর্শী সত্যজিৎ ভারতের আসন্ন সঙ্কটের পূর্বাভাষ দিয়েছিলেন তাঁর চলচ্চিত্রে

Published by: Sankha Biswas |    Posted: April 30, 2021 2:36 pm|    Updated: April 30, 2021 3:25 pm

Published by: Sankha Biswas Posted: April 30, 2021 2:36 pm Updated: April 30, 2021 3:25 pm

নরওয়েজিয়ান নাট্যকার হেনরিক ইবসেনের ১৮৮২’তে লেখা বিখ্যাত নাটক—‘এন এনিমি অফ দ্য পিপল’, বাংলায় ‘গণশত্রু’। বিজ্ঞানের যুক্তি বনাম পুঁজিবাদের ব্যবসায় মুনাফা লুটতে চাওয়ার অসীম লোভ—এমন এক দন্দ্বের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে এক সৎ, আদর্শবান  মানুষের ব্যার্থ লড়াইয়ের ধারাবিবরণী এই নাটক। কিন্তু সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবর্ষে নরওয়ের এই নাটকের কথা বলেই কথা শুরু করা কেন? নাটকটি প্রথম প্রকাশের প্রায় এক শতাব্দী পর, ১৯৮৯ সালে, ‘গণশত্রু’ নামে ছবি তৈরি করেছিলেন, সত্যজিৎ রায়।  সত্যজিৎ তখন জীবন সয়াহ্নে। ‘গণশত্রু’র  পর আর মাত্র দুটো ছবি তৈরি করেছিলেন তিনি। ১৯৯২-এর ২৩শে এপ্রিল তাঁর সৃষ্টি চিরতরে স্তব্ধ হয়ে যায়।

কিন্তু তাঁর জন্মশতবর্ষে, এহেন মৃত্যু এবং মনমরা কথা বলে আমরা কেন তাঁকে  স্মরন করছি? শতবর্ষ উদযাপন তো আনন্দের সময়—এহেন মহান স্রষ্টার সাংস্কৃতিক উত্তরাধিকার এবং বাংলা সংস্কৃতির সম্পর্কে গুনগাণ করাটাই তো শ্রদ্ধা জানাবার শ্রেষ্ঠ উপায়।

যথেষ্ট সচেতন হয়েই, ইংরেজিতে যাকে বলে মরবিড টোন, তা নিয়ে সত্যজিতের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে এই আলোচনার মূলত দুটি কারণ। প্রথম, গোটা দেশ জুড়ে অতিমারি উদ্ভূত হাহাকার— দ্বিতীয়, সত্যজিতের জন্মদিনের দিনই, তাঁর জন্মশহর, কলকাতা তথা পশ্চিমবাংলার টালমাটাল রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে ভোটের ফলপ্রকাশ। সময়ই আমাদের বলবে কোভিড ১৯, নাকি ঘৃণা এবং বিদ্বেষের সাম্প্রদায়িক বিষ, কোন ভাইরাসের শক্তি বেশী—কিন্তু একথা উল্লেখ করতেই হবে, সত্যজিতের জন্মশতবর্ষে বাঙালীদের কাছে চুপ করে বসে থেকে নিভৃতে শিল্পসাধনা করার আর উপায় নেই। একদিকে প্যানডেমিকের মাত্রাছাড়া দাপট, অন্যদিকে আসন্ন হিন্দুত্ববাদী শক্তির এই বাংলায় উল্কার বেগে উত্থান—এই দুইয়েরই অন্তর্বর্তী সময়ে সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবর্ষ এসেছে। আর যে কোনো মানবতাবাদী সংবেদনশীল শিল্পীর মতোই সত্যজিৎ আমাদের শিখিয়েছেন, পারিপার্শ্বকে সতত স্বীকার করে চলতে। তাই সত্যজিতের জন্মশতবর্ষে আমাদের পারিপার্শ্বিক অবস্থা নিয়ে কথা বলতেই হবে—হয়ত কেবলমাত্র পারিপার্শ্বের সমাজ ও রাজনীতি নিয়ে কথা বলাই এই মূহুর্তে সত্যজিৎ রায়কে স্মরণের অন্যতম পথ।

তারপর? শুনুন…

লেখা: সায়ন্তন দত্ত
পাঠ: জয়ন্ত মিত্র
আবহ: শঙ্খ বিশ্বাস

পোল