স্বয়ং মহানায়ক উত্তমকুমারও একবার চ্যালেঞ্জে গোহারান হেরেছিলেন তাঁর খুব কাছের এক সহ-অভিনেতার কাছে!

Published by: Sankha Biswas |    Posted: April 28, 2021 10:49 pm|    Updated: April 30, 2021 12:30 am

Published by: Sankha Biswas Posted: April 28, 2021 10:49 pm Updated: April 30, 2021 12:30 am

নির্দিষ্ট দিনে সকাল ন’টার সময় দেশবন্ধু পার্কের সামনে থেকে মিছিল শুরু হলো। শ্যামবাজার থেকে বিডন স্ট্রিট অঞ্চল থেকে অর্থ সংগৃহীত হবে। উত্তমকুমার রয়েছেন একটি লরিতে। তাঁর পাশে রয়েছেন সাহিত্যিক অসিত গুপ্ত মাইক হাতে ঘোষণারত। তিনি জনগণকে মুক্ত হস্তে, উত্তমকুমারের কৌটোতে দান করতে আহ্বান করছেন। আরও চার-পাঁচটি লরিতে রয়েছেন একঝাঁক মহিলা তারকা। বাকি সমস্ত পুরুষ শিল্পী, কলাকুশলী ও সাংবাদিকরা সকলেই পদাতিক। সিনেমা শিল্পীদের যে কোনও বিষয়েই বিখ্যাত ‘উল্টোরথ’ পত্রিকার বিশেষ ভূমিকা থাকত। সেই পত্রিকার কর্ণধার প্রসাদ সিংহ তাঁর কনসাল গাড়ি নিয়ে মিছিলের সঙ্গেই চলেছেন। বিখ্যাত ডিস্ট্রিবিউটর ও ছায়াবাণী’র কর্ণধার অসিত চৌধুরী আবার সবথেকে বেশি কালেকশন যিনি করবেন তার জন্য বিশেষ পুরস্কার ঘোষণা করে রাখলেন। সুতরাং একটা অদৃশ্য প্রতিযোগিতা কিন্তু প্রথম থেকেই রইল।

এই ঘোষণা শুনেও কিন্তু সেই বিখ্যাত অভিনেতা আবার চ্যালেঞ্জ ছুড়লেন: ‘ভাবিস না উত্তম। হায়েস্ট কালেকশনের প্রাইজটা আমিই পাব।’ তারপরেই শুরু হল খেল। যেখানেই জনতা কৌটোতে টাকা ফেলার জন্য হাত বাড়ায়, সেখানেই এগিয়ে যায় ওই অভিনেতার কৌটো। উনি আবার বলতে লাগলেন: ‘আরে এক টাকা দু টাকা সব আমায় দিন। উত্তমের কৌটোয় পাঁচ টাকার কম দেবেন না। এগুলো আমায় দিন।’ তিনি উত্তমকুমার নাই হতে পারেন, কিন্তু জনপ্রিয়তা তো তাঁরও কিছু কম নয়। প্রিয় অভিনেতাকে হাতের নাগালের মধ্যে ওভাবে পেয়ে সবাই ওঁর কৌটোয় টাকা দিতে লাগল। সবাই যেখানে মিছিলে হাঁটছেন, উনি সেখানে দৌড়ে বেড়াচ্ছেন। এই ডানদিকে তো এই বাঁ দিক। এই সামনে তো এই পিছনে। একসময় উনি অত্যন্ত ভালো ফুটবল খেলতেন। সেই ফুটবল স্কিল যে উনি এখনও ধরে রেখেছেন, তা ওঁর ঘন ঘন পজিশন চেঞ্জের বহর দেখেই দিব্যি বোঝা যাচ্ছে।

এদিকে, রাস্তার আশেপাশের বাড়ির ছাদ, বারান্দা কোনও জায়গাই খালি নেই। হঠাৎ করে ওই অভিনেতা ঢুকে গেলেন রাস্তার পাশের এক পাঁচতলা বাড়ির মধ্যে। দোতলার একটি ঘরের দরজায় নক করলেন।

তারপর? শুনুন…

লেখা: অনুরাগ মিত্র
পাঠ: শঙ্খ বিশ্বাস
আবহ: শঙ্খ বিশ্বাস

পোল