‘আমি ওকে বিয়ে করতে চাই’, চিত্রার স্বামীর কাছে প্রস্তাব রেখেছিলেন জগজিৎ

Published by: Sankha Biswas |    Posted: February 8, 2021 5:42 pm|    Updated: February 9, 2021 4:44 pm

Published by: Sankha Biswas Posted: February 8, 2021 5:42 pm Updated: February 9, 2021 4:44 pm

ধরুন প্রেমে পড়েছেন আপনি। সেই মহিলা কিন্তু বিবাহিতা। ধকে কুলবে্ তাঁর স্বামীর কাছে গিয়ে পাণিপ্রার্থী হতে? এমন অত্যাশ্চর্য কাজটিই কিন্তু করেছিলেন জগজিৎ সিং! বলা ভাল, করে দেখিয়ে দিয়েছিলেন! অকুতোভয় জগজিৎ ও চিত্রা সিংএর অদ্ভুত প্রেমের কথাই আজ শোনাব। জগজিৎ-এর একার তো বটেই, কীভাবে তাঁদের যুগলবন্দি জিতে নিল লক্ষ লক্ষ শ্রোতার হৃদয়।

জগজিৎ তখনও স্ট্রাগলিং আর্টিস্ট। মুকেশ, মোহাম্মদ রফি, কিশোর কুমার, মান্না দে, আর. ডি. বর্মণ সবাই ফুল ফর্মে। নতুনদের আচমকাই জায়গা পাওয়া একটু মুশকিল। জগজিৎ মাসিক ৩০ টাকায় ভাড়ায় বোম্বের শের-এ-পাঞ্জাব হস্টেলে থাকেন। হস্টেল না বলে আস্তাকুঁড় বলা ভাল। ছোট্ট ঘরে চারজন করে বাসিন্দা। রাত্তিরে ইঁদুর এসে পায়ে চুমু দেয়। সকালে ঘুম ভাঙলে পিঠে চাকা চাকা দাগ ছারপোকার ভালবাসার নিশান হয়ে জেগে ওঠে। যে সময়কার কথা, জগজিৎ তখন উদায়স্ত বিজ্ঞাপনি জিঙ্গল আর ক্যাসেটের জন্য ডামি রেকর্ড করে বেরচ্ছেন।

চিত্রার সঙ্গে জগজিতের প্রথম দেখা ১৯৬৭–তে। বোম্বের একটি স্টুডিয়োয়। প্রথম আলাপ মোটেই কহতব্য না। চিত্রার অন্তত এমনটাই অভিমত। স্টুডিয়োর বেল বাজানোর পর চিত্রা দরজা খুলে দেখেন, ঢুলুঢুলু চোখে একজন দাঁড়িয়ে। বিনা বাক্যে সোজা ঢুকেই সোফায় সটান শুয়ে পড়লেন। ভোঁস ভোঁস করে ঘুমতে শুরু করলেন। প্রসঙ্গত, জগজিৎ ছিলেন অসম্ভব ঘুমকাতুরে! প্রথম রেকর্ডিংয়ে জগজিতের সঙ্গে চিত্রা গাইতেও চাননি। মনে হয়েছিল, জগজিতের ভারী গলার পাশে তাঁর গলা খুব বেমানান। কে জানত, বিধাতার অলখ লিখনে, দু’জনে এরপর একসঙ্গে মঞ্চ কাঁপিয়ে বেড়াবেন!

চিত্রা কিন্তু তখন বিবাহিত। পাঁচের দশকেই বিজ্ঞাপনী সংস্থার বড়বাবু দেবপ্রসাদ দত্তর সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। মনিকা নামে তাঁদের একটি বছর পাঁচেকের সন্তানও রয়েছে। কিন্তু জগজিতের চিত্রার প্রতি আকর্ষণ এবং দুর্বলতা দুই-ই বাড়তে থাকে। চিত্রাকেও জগজিতের নরম স্বভাব, মায়াবী গায়কী এবং প্রতিভা আকর্ষণ করত। দেড় দশকের বিয়ের জালে তদ্দিনে ছটফট করছেন চিত্রা। একবছর এভাবেই যায়। পরের বছর চিত্রা দেবপ্রসাদের সঙ্গে বিচ্ছেদ করে মেয়েকে নিয়ে আলাদা থাকতে শুরু করেন। বিচ্ছেদের আগে এবং পরে জগজিৎ অন্তত হাজার বার চিত্রাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছেন। চিত্রা কিছুতেই রাজি হননি। অতঃপর একদিন নাছোড় জগজিৎ সোজা দেবপ্রসাদের কাছে চলে যান। গিয়ে বলেন, ‘চিত্রাকে একটু বুঝিয়ে বলুন তো, আমি ওঁকে বিয়ে করতে চাই। কিন্তু কিছুতেই আমার প্রস্তাবে রাজি হচ্ছে না!’

তারপর শুনুন…

লেখা: সুশোভন প্রামাণিক
পাঠ: শ্যামশ্রী সাহা ও শঙ্খ বিশ্বাস
আবহ: শঙ্খ বিশ্বাস

পোল